রবিবার ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় ২যুগ ধরে ব্যবহার হচ্ছে না ব্রীজ

বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৯     106 ভিউ
কুলাউড়ায় ২যুগ ধরে ব্যবহার হচ্ছে না ব্রীজ

জিয়াউল হক জিয়া, কুলাউড়া :- মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ২ যুগ ধরে ব্যবহার হয়নি একটি ব্রীজ। ব্রীজটি ব্যবহার করার জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন দুই ইউনিয়নের মানুষ। উপজেলার ভূকশিমইল ইউনিয়নের বড়দল, কাড়েরাগ্রাম ও কাদিপুর ইউনিয়নের ছকাপন গ্রামের কৃষকরা শ্রীকন্টি বিল থেকে হাকালুকি হাওরে যাতায়াত করার জন্য একটি খালের উপর নির্মিত হয় এই ব্রীজটি। কিন্তু প্রায় ২২ বছর থেকে দুইপাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে ব্রীজটি।

একসময় সড়ক থাকলেও বর্তমানে চলাচলের জন্য পাকা ব্রীজ আছে নেই কোনো সংযুক্ত সড়ক। এই কারণে স্থানীয় এলাকার কৃষিজীবী মানুষ ও জেলেদের নানা দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে কৃষিকাজ ও মাছ চাষের জন্য হাওরে যাতায়াত করতে হয়। ব্রীজের উভয়পাশে সড়কটিতে পর্যাপ্ত মাটি ভরাটের মাধ্যমে নতুন করে সংযোগ সড়ক নির্মাণ করলে দুই ইউনিয়নের ৪/৫টি গ্রাামের প্রায় ১০ হাজার মানুষের যাতায়াতের কষ্ট লাগব হবে মুখে হাসি ফুটবে বলে মনে করছেন সচেতন নাগরিকরা।

সরেজমিন জানাযায়, ১৯৯৭ সালের দিকে সরকারিভাবে এলজিইডির স্বল্পব্যয়ী সেতু বা কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ১০ মিটার দীর্ঘ এই ব্রীজ ও এক কিলোমিটার মাটির সড়ক তৈরি হয়। পরবর্তীতে এলাকার মানুষ ৫-৬ বছর এই ব্রীজ ও সড়ক ব্যবহার করে তাদের কৃষিকাজ রীতিমতো করে আসছিলেন। কিন্তু বিগত কয়েক দফায় বন্যার ফলে এই সড়কটি সম্পূর্ণ বিলীন হয়েগেলেও সংস্কারের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

স্থানীয় বড়দল গ্রামের সেলিম আহমদ, আতিক আকমল, মোহাম্মদ শামীম, দিলু খাঁ, শাহীন আহমদ, বদরুল ইসলাম, কাড়েরা গ্রামের কনর মিয়া, পাবেল আহমদ, পাপলু চৌধুরী, ফজলে রাব্বি, রিমন চৌধুরী, ছকাপন গ্রামের বাবলু আহমদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ সড়কটি কৃষকদের জন্য হাওরে যাওয়ার একমাত্র মাধ্যম হওয়ার ফলে সারাবছরই অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ব্রীজের সাথে বড়দল-ছকাপন সংযোগ সড়ক না থাকায় আমরা ভারী কৃষিজ পণ্য ও গৃহপালিত পশু নিয়ে অনেক কষ্টে হাটু পানির মধ্য দিয়ে পারাপার হতে হয়। বন্যায় সড়কটি অনেক আগে ধসে যায় যা আর কখনও পুনঃনির্মাণ করা হয়নি।

সচেতন নাগরিক সমাজ-ছকাপন এর আহবায়ক সৈয়দ আব্দুল হামিদ মাহফুজ বলেন, শুষ্ক মৌসুমে স্থানীয়দের যাতায়াতে সুবিধার্থেই ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়েছিলো এবং সাধারণ মানুষ বিভিন্ন ভাবে এর সুফল ভোগ করেছে। এলাকার মানুষের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে হাওরে চলাচল করার সুবিধার্থে বড়দল থেকে ছকাপন পর্যন্ত সংযোগ সড়ক পুনঃনির্মাণ করলে এলাকাবাসী অনেক উপকৃত হবে।

স্থানীয় ভূকশিমইল ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান মনির বলেন, ব্রীজ যেহেতু আছে সেখানে সড়ক পুন:নির্মাণ করা খুবই জরুরি। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. শিমুল আলী বলেন, বিষয়টি জেনেছি। গ্রামীণ অবকাটামো উন্নয়ন খাত টিআর ও কাবিখা প্রকল্প থেকে এই সড়কটি নতুন করে মেরামত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:২৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৯

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com