শুক্রবার ২০শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সিলেটে নতুন ব্যাঙের সন্ধান, বিশ্বে যুক্ত হলো নতুন প্রজাতির ব্যাঙ

মোঃ কাওছার ইকবাল, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার   বৃহস্পতিবার, ০৩ জুন ২০২১     107 ভিউ
সিলেটে নতুন ব্যাঙের সন্ধান, বিশ্বে যুক্ত হলো নতুন প্রজাতির ব্যাঙ

বিশ্বের ব্যাঙ পরিবারে নতুন সদস্য হিসেবে যুক্ত হলো সিলেটের ‘লাল চোখ ব্যাঙ’। বাংলাদেশের মৌলভীবাজার জেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে এই নতুন ব্যাঙের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। আর এটির অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন বন্যপ্রাণী গবেষক মার্জান মারিয়া ও হাসান আল-রাজী। ব্যাঙ নিয়ে গবেষণা করতে এসে লাউয়াছড়ায় এই নতুন প্রজাতির ব্যাঙের সন্ধান পান তারা।

গত ২৮ মে Journal of Natural History-তে তাদের গবেষণা পত্রটি প্রকাশিত হয়। এতে নতুন এই ব্যাঙের ইংরেজি নাম দেয়া হয়েছে, Sylheti Litter Frog. বাংলায় ‘সিলেটের লাল চোখ ব্যাঙ’। শরীর ধূসর কালচে রংয়ের কালো ছোপ। এই রং তাদের ঝরা পাতার সঙ্গে মিশে থাকতে সাহায্য করে। এদের পিছনের পা তুলনামূলকভাবে ছোট হওয়ার কারণে জোরে লাফাতে পারে না। এদের চোখের ওপর অর্ধেক লাল রঙের যেখানে আলো পড়লে উজ্জ্বল প্রতিফলন তৈরি হয়।

গবেষক দল জানায়, বাংলাদেশে মোট ৫৬ প্রজাতির ব্যাঙ রয়েছে। নতুন প্রজাতি যোগ হয়ে এর সংখ্যা এখন ৫৭টি। নতুন এই ব্যাঙটিকে প্রথমে Leptobrachium smithi বলে মনে করা হতো। কিন্তু Leptobrachium smithi বিস্তৃতি বাংলাদেশ থেকে অনেক দূরে যেখানে ধরণের আরও ব্যাঙ রয়েছে। তাদের মতে বাংলাদেশের Leptobrachium গণের যে প্রজাতিটি রয়েছে সেটা আসলেই Leptobrachium Smithi নয়। তাদের এই সিদ্ধান্তের সাথে একমত পোষণ করে যুক্ত হন, রাসিয়ান প্রফেসর Nick Poyarkov। পরে তারা তিনজন যৌথভাবে গবেষণা পরিকল্পনা করে গত বছর জুনে কাজ শুরু করেন। মাঠপর্যায়ে ও ল্যাবরেটরিতে ১১ মাস কাজ করে তারা সিদ্ধান্তে পৌছান যে, এটি একটি নতুন ব্যাঙ।

গবেষক দলের সদস্য হাসান আল-রাজী ও মার্জান মারিয়া জানান, এই ব্যাঙগুলো মূলত বনের ভিতরে পাওয়া যায়। বনের ঝরা পাতার মধ্যে ওরা এমনভাবে মিশে থাকে, বোঝার কোন উপায় নেই যে এখানে কোনো ব্যাঙ রয়েছে। আর ঝরা পাতায় থাকে বলে এই ব্যাঙ’কে ইংরেজিতে Litter Frog বলে। তাই আমরা আমাদের এই ব্যাঙের ইংরেজি নাম দিয়েছি Sylheti Litter Frog আর বাংলা নাম সিলেটি লাল চোখ ব্যাঙ। প্রজননের সময় এরা এই ঝরা পাতা ছেড়ে পাহাড়ি ছড়ায় বসবাস করে। ছড়ার বহমান স্বচ্ছ পানিতে এরা ডিম পাড়ে। ডিম ফুটে ব্যাঙ্গাচিগুলো ছড়ার পানিতে বড় হয়।

দেশে এই নতুন ব্যাঙের সন্ধান বের করতে পেরে আনন্দিত হলেও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন এ জন্য যে, জীববৈচিত্র্যে ভরপুর লাউয়াছড়া বন আর আগের রূপে নেই। ব্যাঙ যেখানে প্রজনন করে বনের সেই ছড়াগুলোও শুকিয়ে গেছে। সিলেটি লাল চোখ ব্যাঙসহ বনের অন্য প্রাণীদের বাঁচিয়ে রাখতে হলে আগে ছড়াগুলোকে বাঁচানো ছাড়া কোন বিকল্পই নেই।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ২:১৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৩ জুন ২০২১

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com