বুধবার ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

শায়েস্তাগঞ্জে বাল্য বিয়ে পণ্ড করল প্রশাসন 

শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০     91 ভিউ
শায়েস্তাগঞ্জে বাল্য বিয়ে পণ্ড করল প্রশাসন 

মোঃ আব্দুর রকিব, হবিগঞ্জ থেকে : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় ৮ম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন। প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বাল্য বিয়ের আয়োজন হয়ে গেল মিলাদ মাহফিল। বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সকাল ১১টায় উপজেলার নছরতপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় উপজেলার নছরতপুর গ্রামে এক স্কুল ছাত্রীর বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ‘বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭’ অনুযায়ী বিয়ে বন্ধ করে দেন শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিনহাজুল ইসলাম। একই সাথে মেয়ে প্রাপ্তবয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না মর্মে উপজেলা প্রশাসনের কাছে মুছলেকা দিয়েছেন কনের পিতা। প্রশানের উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ে বাড়ি হয়ে গেল মিলাদ মাহফিলের বাড়ি। মেয়ের বাবাসহ স্থানীয় মুরব্বীরা এখানে মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে বলার পর প্রশাসনের জেরার মুখে বিয়ে অনুষ্ঠানের কথা স্বীকার করেন তারা।

সূত্রে জানা যায়- উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের নছরতপুর গ্রামের আব্দুল হাই এর পুত্র খোকন মিয়ার সাথে একই গ্রামের মোঃ সফিক মিয়ার স্কুল পড়ুয়া কন্যার বিয়ের দিন তারিখ ধার্য ছিল ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার। মেয়ের বিয়ের সকল আয়োজন শেষে বর পক্ষের লোকজনের জন্য ভুড়িভোজের আয়োজনও করেছিলেন বাড়ির আঙিনায়। তবে কনে অপ্রাপ্ত বয়স্ক এমন সংবাদ শায়েস্তাগঞ্জ থানার পুলিশ জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করেন।  পরে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের লোকজন মিলে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন। মেয়ের বাবা সফিক মিয়া মুছলেকা দিয়ে জেল জরিমানা থেকে রক্ষা পায় এবং মেয়ে প্রাপ্ত বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না মর্মে অঙ্গীকার করেন। মেয়েটি স্থানীয় নূরপুর আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- শায়েস্তাগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) অজয় চন্দ্র দেব, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সাদ্দাম হোসেনসহ শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম।

শায়েস্তাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অজয় চন্দ্র দেব বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যেতেই বাল্য বিয়ে হয়ে যায় মিলাদ মাহফিল। তারপর আমাদের জিজ্ঞাসবাদে সত্যতা বেরিয়ে আসে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিনহাজুল ইসলাম বলেন পুরুষের ক্ষেত্রে ২১ ও মেয়ে ১৮ বছর না হলে আইনত অপ্রাপ্ত বয়স্ক। আজকে অপ্রাপ্ত বয়সের মেয়ের বিয়ে ছিল জেনে আমরা আইন অনুযায়ী বন্ধ করেছি। এটি মুলত রাষ্ট্রীয় আইন এটিকে অক্ষুন্ন রাখা এবং আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে সুস্থ্য ও স্বাভাবিক রাখার জন্য আমরা সরকারের এ কাজগুলো করছি।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com