মঙ্গলবার ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

লাখাইয়ে বামৈ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী টিন আত্নসাতের চেষ্টার অভিযোগ

শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০ 48 ভিউ
লাখাইয়ে বামৈ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী টিন আত্নসাতের চেষ্টার অভিযোগ
লাখাই প্রতিনিধিঃ লাখাই উপজেলার বামৈ সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশিদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে স্কুলের সরকারি টিন আত্নসাতের চেষ্টা করার অভিযোগ তুলেছে এলাকাবাসী।
স্হানীয় সূত্রে জানা যায় স্কুলের বাবুর্চি নোমান ও ভ্যান ড্রাইভার জুনু মিয়াকে নিয়ে স্কুলের কিছু টিন ভ্যানে করে স্কুল থেকে বের করে নিয়ে যাচ্ছিলেন, এমন সময় সেখানে উপস্থিত থাকা বামৈ গ্রামের যুবক পারভেজ, মোশাররফ, জুয়েল চৌধুরী, কাউসার আহমেদ, নেসার আহমেদ, মিন্টু আহমেদ সহ বামৈ গ্রামের কয়েকজন যুবক টিনগুলি আটক করে ভ্যান ড্রাইভার এবং নোমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তারা কেন টিন নিয়ে যাচ্ছেন।
নোমান উত্তর দেন টিনগুলি স্কুলের প্রধান শিক্ষক মামুন স্যারের নির্দেশে বাড়িতে কাজ করার জন্য নিয়ে যাচ্ছেন।উক্ত যুবকেরা তৎক্ষণাৎ মোবাইল ফোনে লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবগত করেন।
এরপর উপস্থিত লোকজনের আপত্তি উপেক্ষা করেই টিনগুলি নোমান সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যান। এর কিছক্ষন পর দুই ধাপে টিনগুলি নোমান উক্ত ভ্যান ড্রাইভারকে নিয়ে স্কুলে পুনরায় ফেরত দিয়ে যান। স্কুলের দপ্তরি সেগুলি নিজ হেফাজতে রাখেন।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশিদ সাহেব কে ফোনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি বলেন বাবুর্চির বাড়ির নিজস্ব কাজের জন্য টিন এর প্রয়োজন হলে উনাকে বলার পর উনি বাবুর্চিকে বলেন স্কুলের দপ্তরি তপন বাবুকে বলে টিন নিয়ে আসতে। পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এর অফিস থেকে উনার সাথে যোগাযোগ করা হলে নিজেই ফোন দিয়ে জানান টিনগুলি ফেরত দিয়ে দিবেন। শিক্ষক টিন ফেরত দিয়ে দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে স্কুলের দপ্তরি তপন বাবুকে জিজ্ঞাসা করা হলে উনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, টিনগুলি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
অভিযোগকারী যুবকদের পক্ষ থেকে কাউসার আহমেদ এবং নেসার আহমেদ বলেন “মামুন স্যার স্কুলের টিন নিজের কাজে ব্যবহারের জন্য আত্মসাতের চেষ্টা করেছেন আমরা এলাকাবাসী মিলে প্রতিহত করেছি।  এর সুষ্ঠু তদন্ত এবং বিচারের দাবী করছি।
এ ব্যাপারে লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্চিতা কর্মকার ফোনে জানান স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে টিন আত্মসাতের চেষ্টার একটি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় তদন্তের জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জীবন কুমার দে কে নির্দেশনা দেয়া হযেছে।তদন্ত সাপেক্ষ পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
Facebook Comments
advertisement

Posted ১:৩২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com