বুধবার ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

তাহিরপুরে ঠিকঠক খ্যাত শরিফকে মদ খাওয়ানো ও ঠিকটক ভিডিও তৈরির অপরাধে ৮জন আটক,পলাতক ২জন

সোমবার, ২৪ আগস্ট ২০২০     187 ভিউ
তাহিরপুরে ঠিকঠক খ্যাত শরিফকে মদ খাওয়ানো ও ঠিকটক ভিডিও তৈরির অপরাধে ৮জন আটক,পলাতক ২জন

আলম সাব্বির, তাহিরপুর(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বাদাঘাট বাজারের ঠিকঠক খ্যাত শরিফকে মদ খাইয়ে ও ঠিকটক ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করার ঘটনায় তাহিরপুর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৮জনকে আটক করে। আটক সবাই জেলার বিভিন্ন উপজেলার স্কুল ও কলেজে অধ্যায়নরত।

সোমবার দুপুরে আটককৃতদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঠিকঠক খ্যাত শরিফ মিয়া (১৩) উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের লাউড়েরগড় গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।
রোববার (২৩.০৮.২০২০) রাতে আটককৃতদের এবং ভিকটিম শরিফকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাথমিকভাবে ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় ভিকটিম শরিফের বড়ভাই শামীম বাদী হয়ে আটক ৮জনসহ ১০জনের বিরুদ্ধে তাহিরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ও আইসিটি আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

জানাযায়, চলতি বছরের জুলাই মাসের শেষের দিকে বাদাঘাট বাজারের সততা স্টোরের মোজাম্মেল হকের ফেসবুক আইডি থেকে অভিবাবকদের সচেতন করার জন্য ও প্রশাসন, সাংবাদিকদের দৃষ্টি আকর্ষন করে কিশোর শরিফের ছবি ও একটি ভিডিও আপলোড করা হয়। ওই ভিডিওতে শরিফ জানায় বাদাঘাটের কয়েক যুবক তাকে জোর পূর্বক মদ খাইয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন রকমের টিকটক ভিডিও তৈরি করে তা ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে।

বিষয়টি সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএমের নজরে আসলে উনার দিকনির্দেশনায় তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতিকুর রহমান ও বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই মাহমুদুল হাসান বিষয়টি গোপনে তদন্ত শুরু করে।

রোববার দুপুরে শরিফের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ভিডিও ভাইরালের ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় ও এই ভিডিও ফেইসবুকে আপলোড করায় উত্তর বড়দল ইউনিয়নের মৃত আঃ গফুরের ছেলে মোজাম্মেল হক(২২)সহ মদ খাওয়ানো ও ঠিকটক তৈরীর সাথে জরিত থাকায় উত্তর ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের শেখ আব্দুর রহমানের ছেলে আলম শেখ(২৩), আনোয়ার হাসেন রুমানের ছেলে তারেক(২২), নাজিম উদ্দিনের ছেলে দীপু(২২),বাচ্চু মিয়ার ছেলে রনি(১৭),বাদাঘাট গ্রামের খুরশিদ মিয়ার ছেলে আব্দুল্লাহ(১৬),দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের পাগলপুর গ্রামের হরমুজ আলীর ছেলে মনির মিয়া(১৯) ও হাবিবুর রহমান সংগ্রামের ছেলে সাগর(২১)কে জড়িত সন্দেহে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। পরে তাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান জানিয়েছেন, ভিকটিমের বড় ভাই শামীম বাদী হয়ে মোট ১০জনের বিরুদ্ধে তাহিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আটককৃত ৮জনকে সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আর পলাতক দুই আসামীকে গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অভ্যাহত আছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:১৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২৪ আগস্ট ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com