শনিবার ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আশ্রয়নের বাসিন্দাদের ব্যতিক্রমী ঈদ উদযাপন 

মোঃ কাওছার ইকবাল, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ   শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১     47 ভিউ
আশ্রয়নের বাসিন্দাদের ব্যতিক্রমী ঈদ উদযাপন 
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার মোহাজিরাবাদ আশ্রায়ন বাসিন্দা  ভূমিহীন-গৃহহীন জাকির মিয়াদের প্রতি বছর কুরবানির ঈদ হতো বাড়ী বাড়ী ঘুরে সংগ্রহ করা মাংস রান্নার পর। মাংস যোগার হলেও রান্নার বাকি উপকরণ যোগার করা কঠিন হয়ে পড়তো।  আশ্রায়ন প্রকল্পে ঠাঁই হওয়ায় এবার সবকিছুই তাদের নাগালের মধ্যে চলে আসে। সরকারের বদৌলতে ঘরবাড়ী এবং খাদ্য সহায়তা। এর সাথে এবার জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের আন্তরিকতায় পেলেন ঈদ উপহার কুরবানির গরু। নিজ আঙ্গিনায় বসেই হয়ে গেল ঈদ উদযাপনের সকল আয়োজন।
এবারই ব্যতিক্রম হলো আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা জাকির মিয়া, হালিমা খাতুন গংদের ঈদ উদযাপনে। এবার সবকিছুই হয়েছে অন্যরকমভাবে। তাদের মত অনেকেই ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার’ হিসেবে দুইকক্ষ বিশিষ্ট নিজের নামে পাকাঘর পেয়েছেন কিছুদিন আগে। সাথে পেয়েছেন দুইশতক জমি। নিজেদের বাড়িতে এবার কুরবানিও হয়েছে ।
তাদের এবারের ঈদ কেটেছে নিজের ঘরে, উৎসব-আনন্দে। আর এসবের ব্যবস্থা করে দিয়েছে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসন এবং শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন।
মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান শ্রীমঙ্গল উপজেলার মোহাজিরাবাদ ও বেগুনবাড়ি আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের কুরবানির জন্য গরুর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। এতে বেজায় খুশি  আশ্রায়নবাসী। মুজিব বর্ষে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজ উদ্যোগে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য নির্মিত এ দুটি আশ্রয়ণ প্রকল্পের মানুষের মনে আনন্দের বন্যা বয়ে চলেছে।
শ্রীমঙ্গলের উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলামের এবারের ঈদ উদযাপনেও ছিল ব্যতিক্রমতা। যারা সরকারের দেয়া বাড়ী পেল, খাবারের ব্যবস্থা হলো, তাদের জন্য কুরবানির ব্যবস্থা হলে কেমন হয়। বিষয়টি অবগত হয়ে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে তাৎক্ষণিক আশ্রায়ন প্রকল্পের মুসলিম বাসিন্দাদের জন্য একটি গরুর ব্যবস্থা করে ফেলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম। উনার উপস্থিতিতেই উপকারভোগীরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ও অন্যান্যদের নামে কুরবানি দেয়। নির্বাহী অফিসার দীর্ঘ সময় থেকে তাদের সাথে ঈদ আপ্যায়নেও অংশগ্রহণ করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম বলেন, জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি হিসেবে আমি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২৯টি পরিবারের সাথে ঈদ উদযাপন করি। তারা বঙ্গবন্ধুর নামেও কুরবানি দিয়েছেন। এবার অন্যরকম এক ঈদ উদযাপন করলাম। সত্যিই এটি আমার জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। যারা এতোদিন মানুষের বাসায় বাসায় গিয়ে মাংস বা ঈদের খাবার চেয়ে নিয়ে আসতেন। এখন তাঁদের নিজের ঘরেই কুরবানি, নিজের ঘরেই ঈদ-আনন্দ।
তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের স্বাবলম্বী ও কর্মসংস্থানের জন্য জীবনমুখী প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। যুব উন্নয়নের মাধ্যমে কৃষি ও পশুপালন, হস্তশিল্পসহ যে যে প্রশিক্ষণের উপযোগী তাঁকে সেই প্রশিক্ষণই দেওয়া হবে।
জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, ইচ্ছা ছিল শ্রীমঙ্গলের আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের নিয়ে একসাথে ঈদ উদযাপন করবো, তাঁদের সাথে কুরবানির মাংস দিয়ে খাবার খাবো। কিন্তু কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ায় সেটা আর সম্ভব হয়নি। তবে আমার পক্ষে শ্রীমঙ্গলের উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাদের জন্য গরুর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন এবং আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের সাথে ঈদ উদযাপন করেছেন।
Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:৪৮ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com