মঙ্গলবার ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নির্ঘুম রাত কাটানোর পরও ডাকাত আতঙ্কে বিশ্বনাথবাসী!

সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 55 ভিউ
নির্ঘুম রাত কাটানোর পরও ডাকাত আতঙ্কে বিশ্বনাথবাসী!

জাহাঙ্গীর আলম খায়ের, বিশ্বনাথ : শনিবার রাত সাড়ে ১০টা। হঠাৎ খবর আসে প্রবাসী অধ্যুষিত সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর ও ছাতক এবং সিলেটের বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর সীমান্ত দিয়ে বিশ্বনাথে ডাকাত ঢোকেছে। খবরটি সরাসরি বিশ^নাথ থানা পুলিশের হওয়ায় উপজেলার সচেতন নাগরিকরা এ বিষয়টি আমলে নেন। আর স্থানীয় সাংবাদিক, সেচতন মহল ও গ্রামাঞ্চলের সাধারণ মানুষও নিজ নিজ ফেসবুক’র টাইমলাইনে শেয়ার করেন। মুহুর্তের মধ্যেই উপজেলায় ডাকাত প্রবেশের বিষয়টি ফেসবুকে বাইরাল হয়ে যা। আর ডাকাত প্রবেশরে বিষয়টি উপজেলার ৪৩৪টি গ্রামের মসজিদে মসজিদে মাইকিং করে জানিয়ে দেওয়া হয়। এসময় বিশ্বনাথ থানা পুলিশের বরাত দিয়ে সোশাল মিয়িা ফেসবুকেও বলা হয় ‘মকরম’ ডাকাত তার দলবল নিয়ে বিশ^নাথে প্রবেশ করেছে। যেকোন সময় যেকোন বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটতে পারে। আর এজন্য সকলকে সজাগ দৃষ্টি রেখে পুলিশকে সহযোগীতা করতে হবে। ফলে শনিবার (০৭ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত উপজেলাবাসী নির্ঘুম রাতকাটালেও ডাকাত প্রবেশের বিষয়টি সত্যি না গুজব ? এমন প্রশ্নই এখন মানুষের মধ্যে ঘোরপাক খাচ্ছে।

আজ রোববার (০৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায়ও একইভাবে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে লোকজন মোবাইল ফোনে অনেকেই জানতে চান, আজও কি প্রবাসী অধ্যুষিত বিশ্বনাথে ডাকাত হানা দেবে! এর আগে ২০১৬ সালেও একইভাবে হঠাৎ ডাকাত আতঙ্গে উপজেলা জুড়ে পাহারা দেওয়া হয়।

রোববার (০৮ ডিসেম্বর) রাত ৮টারদিকে মেবাইাল ফোনে কথা হয় উপজেলার জগৎপুর গ্রামের মধু মিয়া, মাইঝ গ্রামের আহমেদ ওমি, সৈয়দপুর সদুরগাঁওয়ের রুয়েল আহমদ মিঠু, মৌজপুরের আব্দুর রউফ, কালিগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী শাহাজাহান আহমদের সঙ্গে। তারা বলেন, শনিবার রাতে ডাকাত আতঙ্গে তারা ঘুমান নি। আর আজ রোববার এ ধরনের কোন সংবাদ আছে কিনা জানতে উপজেলা সদরের বসবাসকারী তাদের পরিচিত সাংবাদিক পরিচিত ব্যবসায়ী কিংবা আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাক্ষা করে যাচ্ছেন। তবে, আজ ডাকাত হানা দেওয়ার কোন খবর পাননি বলে জানিয়েছেন বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামীম মূসা।
তিনি বলেন, পুলিশের পাশাপাশি উপজেলাবাসী সতর্ক থাকায় কোথাও ডাকাতির ঘটনা ঘটেনি। শনিবার রাতে গোপন সংবাদে খবর পাওয়ায় তিনি সচেতন মহলের প্রতি আহবান জানিয়ে ছিলেন পুলিশকে সহযোগীতা করার। ফলে সচেতমহলসহ সাধারণ জনগনও বিভিন্নভাবে পুলিশকে সহযোগীতা করেছেন। তবে তিনি বিশ্বনাথবাসীকে অনুরুধ জানিয়েছেন, চোর-ডাকাত এড়াতে তারা যেন তাদের বাসা-বাড়ির গেটের তালায় একটি বক্স লাগিয়ে দেন। যাতে করে চোর-ডাকাত সহজে বাসা-বাড়িতে না ঢুকতে পারে।

Facebook Comments
advertisement

Posted ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com