বুধবার ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

ছাতকে ৩য় দফা বন্যা, খাদ্যাভাব ও বিশুদ্ধ পানি সংকটে লাখ মানুষ

বুধবার, ২২ জুলাই ২০২০     88 ভিউ
ছাতকে ৩য় দফা বন্যা, খাদ্যাভাব ও  বিশুদ্ধ পানি সংকটে লাখ মানুষ

বিজয় রায়, ছাতক প্রতিনিধিঃ ছাতকে টানা তৃতীয় দফা বন্যায় সাধারন মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা তছনছ পড়ে পড়েছে। চরম দুর্ভোগের মধ্যদিয়ে দিনানিপাত করছে এখানের বন্যা কবলিত কয়েক লাখ মানুষ। প্রথম ও দ্বিতীয় দফা বন্যার ভোগান্তি শেষ হতে না হতেই তৃতীয় দফা বন্যায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে এখানের মানুষ। কাঁচা-পাকা রাস্তাঘাট, শ’ শ’ ঘরবাড়ি ও বসতভিটা বানের পানিতে ভেঙ্গে গেছে। রাস্তা-ঘাট ভেঙ্গে যাওয়া যোগাযোগ ব্যবস্থার মারাত্মক ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

টানা দু’দফা বন্যায় গ্রামীন সড়কগুলো ভেঙ্গে চলাচলের সম্পূর্ন অনুপোযুগী পড়েছে। এখন তৃতীয় দফা বন্যায় এসব সড়কের অস্থিত্ব বিলীন হওয়ার আশংকা রয়েছে। ঘন-ঘন বন্যায় ভোগান্তির পাশাপাশি চরম খাদ্যাভাব ও বিশুদ্ধ পানযোগ্য পানির সংকটে পড়েছে বান্যা কবলিত মানুষ। টানা তিনদিন ধরে চলা মুশলধারে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারনে তৃতীয় দফা বন্যা ভয়াবহ আকার ধারন করার আশংকায় রয়েছে এখানের মানুষ। সুরমাসহ চেলা ও পিয়াইন নদী পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ইতিমধ্যেই শহরের ট্রাফিক পয়েন্ট ছাড়া সব সড়কই বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। বিছিন্ন হয়ে পড়েছে শহরের সাথে সব অঞ্চলের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা।

ইতিমধ্যেই বহু মানুষ ঘর-বাড়ি ছেড়ে আশ্রয় কেন্দ্রসহ বিভিন্ন উচুঁ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। শহর কিংবা শহরের আশাপাশের পানিবন্দি মানুষ সরকারী-বেশরকারী ত্রান বা সহ্য়াতা পেলেও পানি বন্দি বিশাল গ্রামীন জনগোষ্ঠি থেকে যাচ্ছে সাহায্য-সহায়তার বাইরে। যার ফলে কাঁচা ঘর-বাড়িতে বসবাসরত বিশাল গ্রামীন জনগোষ্ঠিই মুলত বন্যাকবলিত হয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এসব গ্রামীন মানুষ ২য় দফা বন্যার ভোগান্তি শেষে নিজেদের গুছানোর আগে ৩য় দফা বন্যায় বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে। তারা নিজেদের ঘরে থেকেই বন্যার সাথে যুদ্ধ করে বাঁচার লড়াই করছে।

অভিজ্ঞজনদের মতে সরকারী-বেসরকারী সব ক্ষেত্রেই শহর ও তার আশপাশের এলাকায় ত্রান বিতরণের নামে ফটোসেশন না করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে যারা প্রকৃত বন্যাপীড়িত তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসা উচিত। সরকারী ত্রান যাতে সঠিক পানিবন্দি মানুষের কল্যানে বিতরণ সে দিকে সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাদের বাড়তি নজর দেয়া উচিত বলে তারা মতামত ব্যক্ত করেছেন। গত ২৮ জুন থেকে ২১ জুলাই পযর্ন্ত দফায়-দফায় বন্যায় মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন এখানের কৃষকরা। শাক-সবজীর বাগান ও আমন বীজতলা সম্পূর্নরূপে নষ্ট হয়ে গেছে। নতুন করে বীজ সংগ্রহ ও বীজতলা প্রস্তুতের জন্য কৃষকদের সকল পরিকল্পনাও ভেস্তে গেছে ৩য় দফা বন্যায়। এখন আমন ফসল চাষাবাদ নিয়ে দিশেহারা এখানের কৃষকরা।

এদিকে সুরমা, চেলা ও পিয়াইন নদীর পানি বৃদ্ধ অব্যাহত রয়েছে। ছাতক-গোন্দিগঞ্জ-সিলেট, ছাতক-সুনামগঞ্জ, ছাতক-জাউয়া, ছাতক-দোয়ারা সড়কের বিভিন্ন এলাকা বন্যার পানিতে আবারো তলিয়ে গেছে। প্রবল বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলের কারনে এখানে সুরমা, চেলা ও পিয়াইন নদীর পানি ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া তথ্য মতে সুরমা নদীর পানি ছাতক পয়েন্টে বিপদসীমার প্রায় ১৫৮ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। চেলা নদীর পানি বিপদসীমার প্রায় ১৬৫ সেন্টিমিটার এবং পিয়াইন নদীর পানি বিপদসীমার প্রায় ১৭২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবল বেগে প্রবাহিত হচ্ছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২২ জুলাই ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(459 ভিউ)

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com