বৃহস্পতিবার ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

৩ বছরেও সমন্বয়হীনতায় অধরা কুলাউড়া ছাত্রলীগের পুর্নাঙ্গ কমিটি

মঙ্গলবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 46 ভিউ
৩ বছরেও সমন্বয়হীনতায় অধরা কুলাউড়া ছাত্রলীগের পুর্নাঙ্গ কমিটি

জিয়াউল হক জিয়া, কুলাউড়া প্রতিনিধি :- বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কুলাউড়া উপজেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি চুড়ান্ত হয়নি। ১৫ দিনের মধ্যে পুর্নাঙ্গ কমিটি করার নির্দেশনা থাকলেও গত আড়াই বছরে তা বাস্তবায়ন হয়নি। অবশ্য সভাপত- সাধারণ সম্পাদক সমন্বয়ের অভাবের কথা স্বীকার করলেন। বর্তমান কমিটি ব্যর্থ বলে উল্লেখ করে, ছাত্রলীগের কর্মিরা এই কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণার দাবি জানান। এ নিয়ে ছাত্রলীগ কর্মিদের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১০ জানুয়ারি মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. আসাদুজ্জামান রনি ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রনি স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে নিয়াজুল তায়েফকে সভাপতি ও আবু সায়হাম রুমেলকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট এক বছরের কমিটি গঠন করা হয়। এরমধ্যে কমিটির একজন সহ-সভাপতি নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় সংগঠন থেকে বহিস্কার হয়েছেন এবং আরেকজন
সহ-সভাপতি ইতিমধ্যে বিয়ে করেছেন। এছাড়া হাবিবুর রহমান জনিকে সভাপতি ও ইমন আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে ৬ সদস্যের
কমিটি এবং জাকারিয়া আল জেবুকে সভাপতি ও আনোয়ার বখসকে সাধারণ সম্পাদক করে কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজ কমিটি গঠন করা হয়। এদিকে চলতি বছরের ৭ জুলাই মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের দায়িত্ব পান বর্তমান সভাপতি আমীরুল হোসেন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম। দায়িত্ব গ্রহণের পর তাদের স্বাক্ষরিত পত্রে নির্দেশনা দেয়া হয় ১৫ দিনের মধ্যে ছাত্রলীগের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার হয়। কিন্তুু জেল ছাত্রলীগের নির্দেশনার ৫ মাস পেরিয়ে গেলেও কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি তায়েফ-রুমেল নেতৃত্বাধীন কুলাউড়া ছাত্রলীগের কমিটি। এর মধ্যে কয়েক দফা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার কথা শোনা গেলেও পরে আর তা বাস্তবায়িত হয়নি। কমিটি পূর্ণাঙ্গ না হওয়ায় পদ-পদবিহীন তৃণমূলের কর্মীরা হতাশায় ভুগছেন এবং ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। তারা ব্যর্থতার জন্য শীর্ষ দুই নেতাকেই দায়ী করছেন। তারা ব্যর্থ নেতাদের নেতৃত্ব চান না। চান নতুন ও উদ্যোমি নতুন কমিটি। পূর্ণাঙ্গ
কমিটিতে পদ পেতে শুরুতে কর্মীরা অনেক দৌড়ঝাঁপ ও তদবির শুরু করলেও তা এখন ঝিমিয়ে পড়েন। মুলত উপজেলা আওয়ামী লীগের দ্ব›দ্ব কোন্দলের প্রভাব পড়ে ছাত্রলীগেও। ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মুল দলের দুই বড়ভাইয়ের আস্তাভাজন। বড় ভাইদের মধ্যে দা কুমড়া সম্পর্ক। সেই প্রভাব পড়ে ছাত্রলীগে। প্রায় ৩ বছর অতিবাহিত হওয়ার পথে। কিন্তু পুর্নাঙ্গ কমিটি দেখেনি আলোর মুখ।

পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান জনি জানান, জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশ মত ৮১ সদস্য বিশিষ্ট
পৌর ছাত্রলীগের পুর্নাঙ্গ কমিটি জমা দিয়েছি। কিন্তু এখনও কোন অনুমোদন পাইনি। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিয়াজুল তায়েফ ও সাধারণ সম্পাদক আবু সায়হাম রুমেল জানান, সম্বন্বয়ের অভাবে এতোদিন কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা তৈরি করে
জেলা দপ্তর সম্পাদকের কাছে পাঠানো হয়েছে। জেলা সভাপতি-সম্পাদক এখনো কমিটি অনুমোদন করেন নি।

এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আমীরুল হোসেন চৌধুরী জানান, কুলাউড়া ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে সম্বন্বয় করে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা জেলায় প্রেরণের নির্দেশনা দিয়েছি। আশা করি শীগ্রই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।

Facebook Comments
advertisement

Posted ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com