রবিবার ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় ধান কাটেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা- আবু তালেব

মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল ২০২০     57 ভিউ
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় ধান কাটেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা- আবু তালেব
সাইফ উল্লাহ, সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা পাইকুরাটি ইউনিয়নের গন্ডাবের হাওরে ২য় দিনের মত ধান কাটা শুরু করেন ধর্মপাশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. আবু তালেব। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ধান কাটা শুরু করা হয়েছে।
কৃষকের বোরো জমির ধান কেটে দেওয়া হয়েছে। আাগাম বন্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকায় হাওরের পাকা ধান দ্রত কেটে ফেলার লক্ষ্যে কাটলে ধান, মিলবে ত্রাণ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে উপজেলা প্রশাসন নানা শ্রেণি পেশার শতাধিক মানুষজন নিয়ে কৃষকের পাকা ধান কাটার এই উদ্যোগে নেন।
ধান কাটার কাজে অন্যান্যদের মধ্যে অংশ নেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা) আবু তালেব, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা.ঝন্টু সরকার, সাবরেজিষ্টার রাজেশ চন্দ্র, ধর্মপাশা সাকর্লে (এএসপি) সুজন চন্দ্র সরকার, কৃষি কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম,কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন,উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রজেশ চন্দ্র দাস, পল্লী জীবিকায়ন প্রকল্প কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম সোহাগ,উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান,সাখাওয়াত হোসেন সোহাগ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক মো. মোস্তফা, ইনশান, সাবেক উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক শাহ আব্দুল বারেক ছোটন প্রমুখ। উপজেলায় ৩১হাজার ৭২০হেক্টর বোরো জমির মধ্যে মঙ্গলবার পর্যন্ত এ উপজেলার বিভিন্ন হাওরের ৬ হাজরা ৭৯০হেক্টর বোরো জমির ধান কাটা হয়েছে।
ইউএনও আবু তালেব বলেন, আগাম বন্যা হতে পারে। তাই হাওরের পাকা ধান যাতে দ্রুত কৃষকেরা কেটে ফেলেন সেজন্য তাঁদেরকে উৎসাহ দেওয়ার লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষজন নিয়ে কৃষকদের ধান কেটে দেওয়ার কাজে আমরা অংশ নিয়েছি।
এ ছাড়া এখানকার ১০টি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরাও প্রশাসনের সঙ্গে একাত্মতা পোষন করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষজন নিয়ে এখানকার বিভিন্ন হাওরে ধান কাটার কাজে অংশ নিয়েছেন। কাটলে ধান মিলবে ত্রাণ এই কর্যক্রমের অংশ হিসেবে ওইদিন ধান কাটার কাজে অংশ নেওয়া ১৫০ জন দরিদ্র ব্যক্তির মধ্যে ৩০০করে টাকা, একটি সাবান, এক বোতল বিশুদ্ধ পানি ও এক প্যাকেট বিস্কুট বিতরণ করা হয়েছে।
এ ছাড়া যারা ভাসমান, কমর্হীন বেকার রয়েছেন তাঁরা যদি কৃষকের সঙ্গে হাওরের ধান কাটার সঙ্গে যুক্ত হলে তাঁদেরকে সরকারিভাবে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে। এ নিয়ে তালিকা করার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানগণকে বলা হয়েছে কাটা শেষ না হওয়া পযন্ত ধান কাটা অব্যাহত থাকবে।
Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:১১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com