বৃহস্পতিবার ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

শাল্লায় যুবলীগ নেতার  রাস্তার  কাজে অনিয়ম    

সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০ 25 ভিউ
শাল্লায় যুবলীগ নেতার  রাস্তার  কাজে অনিয়ম    
শাল্লা  (সুনামগঞ্জ)  প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের শাল্লায় চলতি অর্থ বছরে এডিপি (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী) খাতে উন্নয়নমূলক কাজে চরম অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। যুবলীগ নেতার তদারকিতে প্রশাসনের নাকের ডগায় উপজেলা সদরের ঘুঙ্গিয়ারগাঁও মডেল স্কুল সংলগ্ন রাস্তাটি মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে  নিম্মামানের মালামাল দিয়ে তড়িগড়ি করে কাজ করেছে । উক্ত কাজে যুবলীগ নেতার তদারকি থাকায় ভিতরে ভিতরে ক্ষোভ প্রকাশ করলেও ভয়ে মূখ খুলছেনা কেউ।
অনুসন্ধানে জানা যায়, কাজটি পেয়েছিল হাজী মজু মিয়া এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মোঃ জনি মিয়া টেন্ডারে  এলজিইডি’র একটি প্যাকেজে সাতটি কাজ পায়। সেই কাজগুলো যুবলীগ নেতা ফেনি ভুষণ সরকার ও রতন নামে ব্যক্তিদ্বয়ের নিকট জনি মিয়া বিক্রি করে দেন।
এর মধ্যে আনন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে একটি ঘাঠলা ও উপজেলা সদরের ঘুঙ্গিয়ারগাঁও গ্রামের ভিতরে রাস্তাসহ সবকটি কাজই  যুবলীগ নেতা ফেণিভূষণ ও রতন দাস  কাজগুলো করোনার আতংকের সুযোগ পেয়ে খুবই নিম্নমানে কাজ করছে।
আর এসব কাজে  সহযোগিতা করছে  এলজিইডি অফিসের এক কর্মকর্তা।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কাজে নিয়োজিত শ্রমিকরা বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতে সম্পূর্ণ অরক্ষিত অবস্থায় কাজ করছে। এখানে মানা হচ্ছে না কোনোরূপ সামাজিক দুরত্ব। তাছাড়া সুযোগের সন্ধানী হয়ে তারা  রাস্তার কাজে  খুবই নিন্মামানের মালামাল ব্যবহার করছে।
কাজে  ধোয়া-মুছা ছাড়াই গাছের ডালপালা ও পাতাসহ ময়লাযুক্ত মালামাল দিয়ে তড়িগড়ি করে রাস্তার ঢালাই করছে শ্রমিকরা। কাজ পরিচালনায় নিয়োজিত এলজিইডি’র কার্যসহকারি মোঃ তকবির হোসেনকে সামনে রেখেই চলছে এমন দুর্নীতি অনিয়ম।
এ বিষয়ে ঘুঙ্গিয়ারগাঁও গ্রামের হেমসেন সরকার ও সুবীর সরকার বলেন, রাস্তার কাজ খুবই নিন্মামানের  হয়েছে। আমরা গ্রামের পক্ষে বাজে কাজ না করার জন্য নিষেধ  করেছি। কিন্তু তাদের কাজ তারা করছেই।   তারা আরো বলেন  এখন বৈশাখ মাস হওয়ায় আমরা বোরো ফসল নিয়ে  খুবই ব্যস্ত, তাই আমাদের দ্বারা তদারকি করা সম্ভব হয়নি বিধায় ঠিকাদারের লোকজন এরূপ কাজ করছে।
কাজের বিষয়ে কথা বলতে এলজিইডি অফিসে গিয়ে কাউকেই পাওয়া যায়নি।  এমনকি দু’দিন যাবত এলজিইডি’র উপ-সহকারি প্রকৌশলী মোঃ নূরুজ্জামানের   মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
এবিষয়ে এলজিইডি’র অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী মোঃ ইফতেকার হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি দিরাইয়ে আছি। আমি এখনই উপ-সহকারি প্রকৌশলী মোঃ নূরুজ্জামানকে বলে দিচ্ছি কাজটি দেখার জন্য।
এব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কাজে অনিয়মের খবর পেয়ে আমি পরিদর্শন করেছি। তিনি রাস্তার কাজটি নিন্মামানের হয়েছে বলে জানান।
Facebook Comments
advertisement

Posted ৭:২০ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com