বৃহস্পতিবার ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

দোয়ারায় ইউপি সদস্যের উদ্যোগে বাদপড়া উপকার ভোগীদের মাঝে ত্রান বিতরণ

আশিক মিয়া, দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি   রবিবার, ১১ আগস্ট ২০১৯ 136 ভিউ
দোয়ারায় ইউপি সদস্যের উদ্যোগে বাদপড়া উপকার ভোগীদের মাঝে ত্রান বিতরণ

নিজ উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করছেন লক্ষিপুর ইউনিয়নের সদস্য মিন্টু ও জাহাঙ্গির

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে শনিবার দুপুরে লক্ষিপুর ইউনিয়নের দুজন ইউপি সদস্যের উদ্যোগে বাদপড়া উপকার ভোগীদের মাঝে ত্রান বিতরণ করা হয়েছে। চকবাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ৪ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য সোহেল আহমদ মিন্টু ও ৫ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য তাদের নিজস্ব অর্থায়নে এ উদ্যোগ গ্রহন করা হয়।

গরীব অসহায়দের মাঝে  বিতরণ পুর্ব এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন  সমাজ সেবক আলহাজ খলিলুর রহমান,  শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবক মো.জহিরুল হক, সমাজ সেবক আতাউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মো. মরম আলী, মো.সিরাজ উদ্দিন,মো.কুরবান আলী, হাজী গোলাম শরিফ,মো.ইব্রাহীম মুল্লা, মো.শাজাহান মিয়া,খুরশেদ আলম,মো.আব্দুল মান্নান, ডাক্তার জাকির হোসেন, নুর মোহাম্মদ,হুমায়ুন ফরিদ, ইয়াকুব আল তামিম, মো.জামাল হোসেন, মো.আলী হুসেন প্রমুখ।

এসময় ইউপি সদস্য সোহেল আহমদ মিন্টু তার বক্তব্যে বলেন, এবারের ঈদে সরকারি ভিজিএফ এর যে চাউল বিতরণ করা হয়েছে সেটার তালিকা তৈরী করার আগে ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আমাদেরকে ফোনে জানান আপনারা প্রত্যেকে ৬০ জন অসহায়দের তালিকা দুই দিনের মধ্যে জমা দেন। আমি নিজে ৬০ জন অসহায়দের ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করে প্রত্যেকের নামের সাথে আইডি নাম্বার সংবলিত তালিকা প্রস্তত করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়া গেলে আমাদের পরিষদের সচিব সাহেব বলেন, আপনাদের দেয়া তালিকা রাখা যাবেনা। কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব আমাকে নিষেধ করেছেন।
সমাজ সেবক আলহাজ মো.খলিলুর রহমান বলেন, একজন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউপি সদস্যদের সাথে এধরণের আচরণ করা ঠিক হচ্ছেনা। এটা আসলে দুঃখজনক এটি ঘটনা। ইউপি সদস্যরা যে তালিকা তৈরী করেছিল তাদেরকে রিলিফ দেয়া থেকে বাদ দেয়াটা টিক হয়নি।

এব্যাপারে ইউপি সচিব মো.অলিউল্লাহ জানান, আমি প্যানেল চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে পরামর্শ করে ইউপি সদস্য সোহেল আহমদ মিন্টু ও জাহাঙ্গির আলমসহ সব ইউপি সদস্যকে মোবাইল ফোনে তালিকা দেয়ার জন্য বলছিলাম। সবাই তালিকা জমা দিয়েছেন পরে আমাকে চেয়ারম্যান সাহেব নিষেধ করেছেন মিন্টুর তালিকা না রাখার জন্য। সে অনুযায়ী আমি তাদের তালিকা রাখতে পারিনাই।
ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য দুইজনকে এক সাথে করে আমি নিজেই বলে আসছি তালিকা জমা দেয়ার জন্য। তারা দুইজন প্রায় সময় ইউনিয়ন পরিষদের সভায় উপস্থিত থাকেননা। ইউপি সদস্য মিন্টু ও জাহাঙ্গিরের অভিযোগটি সম্পুর্ণ মিথ্যা।

Facebook Comments
advertisement

Posted ১:৩২ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১১ আগস্ট ২০১৯

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com