শুক্রবার ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

গোলাপগঞ্জে কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের সংকটের দিনকাল

রবিবার, ১০ মে ২০২০     48 ভিউ
গোলাপগঞ্জে কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের সংকটের দিনকাল

অজামিল চন্দ্র নাথ, গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি: সারা বিশ্বের মতো দেশেও অদৃশ্য করোনা ভাইরাসের আক্রমণে স্থবির হয়ে গিয়েছে সকল কার্যক্রম। তৈরি হয়েছে অর্থনৈতিক সংকট। এই উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের মতো সংকটে পড়েছেন দেশের কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর শিক্ষক ও পরিচালকগণ। এই স্কুলগুলো মূলতঃ শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতনের ভিত্তিতে পরিচালিত হয়। কিন্তু দেশের এই সংকটাবস্থায় স্কুলের সকল কার্যক্রম বন্ধ ও অভিভাবকবৃন্দের নিকট থেকেও ছাত্র বেতন আদায় করা সম্ভব হচ্ছে না। গোলাপগঞ্জেও তার ব্যতিক্রম নয়। স্কুল বন্ধ থাকায় বেতন নেই। দিশেহারা হয়ে পড়েছেন শিক্ষকরা। মানবেতর দিনাতিপাত করতে হচ্ছে তাদের।

হেতিমগঞ্জ নতুন কুঁড়ি শিশুবিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান শিক্ষক অরুন দেব বলেন, বাংলাদেশের শিক্ষার মানোন্নয়নে কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর অবদান অনস্বীকার্য। সে ধারাবাহিতায় সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ও বেশ কিছু কিন্ডারগার্টেন স্কুল গড়ে উঠেছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্বল্পতা থাকায় এসব কিন্ডারগার্টেন স্কুল সে চাপ কাটিয়ে দিয়েছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রে এ কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো বিশেষ অবদান রেখেছে। এ কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর শিক্ষকরা উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও কোনো চাকুরীর সুযোগ না থাকায় মাসিক ২০০০/২৫০০টাকা সম্মানীতে স্বেচ্ছাশ্রম হিসেবে এসব বিদ্যালয়ে শিক্ষা দেন। অনেকেই আবার এর সাথে সাথে টিউশনি করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

গোলাপগঞ্জ কিন্ডারগার্টেন এন্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুল এসোসিয়েশনের প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক ও চাইল্ড কেয়ার কিন্ডারগার্টেন স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা জাহাঙ্গীর আলম সোহেল বলেন, প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ বিনির্মানের অন্যতম রূপকার শেখ হাসিনা কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষার সাথে জড়িত এসব মানুষ গড়ার কারিগরদের খেয়ে পরে বাচাঁর জন্য কিছু একটা করা জন্য আবেদন জানান। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে সবিনয়ে আবেদন করে বলেন এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে শুধু ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষাই জড়িত নয়, এখানে জড়িয়ে আছে অনেকগুলো পরিবারের বাঁচা মরার লড়াই। তাই আপনার (প্রধানমন্ত্রী) কাছে আমি একজন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষক হিসেবে আপনার কাছে অনুরোধ করছি একমাত্র আপনি আপনার সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলে এই সব মানুষগড়ার কারিগরদের বাঁচার ঠাঁই হবে এই সংসারে।

উপজেলার দ্বীন মোহাম্মদ একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন শিক্ষক শিক্ষিকাদের দৈন্যদশা লাঘবে প্রধানমন্ত্রীর সু-দৃষ্টি কামনা করেন।  বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক শিক্ষিকা ও কর্মচারী কি পরিমান অর্থ কষ্টে জীবনযাপন করছেন তা না দেখলে কেউ অনুভব করতে পারবে না। জাতি গড়ার কারিগর যারা তাদের কষ্টের কথা কাউকে না কইতে পারে না সইতে পারে। কষ্টের মধ্যে নিরবে নিভৃতে থাকা মানুষগুলোর জন্য অচিরে সরকারী বেসরকারী সহযোগিতায় তাদের জীবন ধারণে সুখের ছোঁয়া লাগবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোফাজ্জল হোসেন বলেন আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। তাই সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে স্কুলগুলোর ভবন মালিকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ভাড়া বিবেচনা করতে ও এই সকল সেবাদানকারী শিক্ষকদের জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট সকলের সু-দৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে কোনো বিদ্যালয়ই তাঁদের মাসিক সামান্য সম্মানী চালিয়ে নিতে পারছেন না। এমনকি শিক্ষকরা তাঁদের টিউশনিগুলো ও করতে পারছেন না। অনেকেই মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন কিন্তু কারো কাছে লজ্জায় হাত পাততে পারছেন না। শিক্ষকরা নিষ্ঠা ও সততার সাথে তাঁদের দায়িত্ব পালন করে থাকেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্টরা যথাযথ মূল্যায়নের মাধ্যমে বিষয়টি বিশেষভাবে বিবেচনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ জানান শিক্ষকরা।

 

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:৫২ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১০ মে ২০২০

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com