সোমবার ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন: মাঠে ও সামাজিক মাধ্যমে সরব প্রচারণা

বৃহস্পতিবার, ০৭ নভেম্বর ২০১৯     175 ভিউ
কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন: মাঠে ও সামাজিক মাধ্যমে সরব প্রচারণা

জিয়াউল হক জিয়া, কুলাউড়া :- ১৫ বছর পর ১০ নভেম্বর কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে নেকার্মীরা উজ্জিবীত। গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে নেতারা ছুটছেন কাউন্সিলরদের কাছে। আসন্ন সম্মেলনে অনেকে আবার অর্থের বিনিময়ে পদ পাবারও তদবির করছেন বলে জানা গেছে।
২০০৪ সালে সর্বশেষ কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এরপর কমিটির অনেক দায়িত্বশীল পদের লোকজন মারা যাওয়া ও প্রবাসের স্থায়ী বাসিন্দা হওয়ার ফলে বিগত কমিটির সিংহভাগ পদের নেতাদের কোন অস্থিত্ব নেই।
একটা সময় দলীয় কোন্দলে বিপর্যস্থ ছিলো দলের অবস্থা। সমস্ত প্রতিকূলতা কাটিয়ে আওয়ামী লীগ যেন নতুন করে জেগেছে। সর্বত্রই সাজ সাজ রব। আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে কারা আসছেন নতুন নেতৃত্বে নাকি পুরাতনেই আস্থা রাখছে কেন্দ্র। দলের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী আছে আবার প্রার্থী নেই এমন খেলা চলছে সর্বত্র। নেতাদের জিজ্ঞেস করলে বলেন, দলের কাউন্সিলররা এবং জেলা ও কেন্দ্র যে দায়িত্ব দেবে, সেই দায়িত্ব পালন করবো। এমন প্রত্যয়দীপ্ত কথা এর আগে বললে দল আরও সুসংগঠিত হতো বলে তৃণমুল নেতাকর্মীরা বলছেন।
সম্মেলন ঘিরে সোচ্ছার উপজেলার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ব্যবহারকারীরাও। পোস্টের মাধ্যমে অনুসারীরা সভাপতি কিংবা সাধারণ সম্পাদক পদে দেখতে চাই বলে নেতাদের প্রচারণা চালাচ্ছেন।
তৃণমুল নেতাকর্মী ও নামপ্রকাশ না করার শর্তে বর্তমান কমিটির অনেকেই জানান, তারা চান দলে অনুপ্রবেশকারীদের যেকোন মুল্যে ঠেকানো। এছাড়া সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যারা ধানের শীষের পক্ষে কাজ করেছেন, তাদের চিহ্নিত করে দলের সাথে বিশ^াসঘাতকদের বাদ দিয়ে নিবেদিত প্রাণ কর্মীরা যাতে স্থান পায় কমিটিতে। তবে যে যাই বলুক না কেন- দলের জন্য সবচেয়ে নিবেদিত প্রাণ ও দু:সময়ের কান্ডারি কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনুর অবদানের কথা নেতাকর্মীরা স্বীকার করছেন নির্দ্বিধায়।
তিনি বিগত ১৯৭৩ সাল থেকে ২৮ বছর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। দলের সভাপতি কিংবা সাধারণ সম্পাদক পদে তাকে মেনে নিতে কারো কোন দ্বিমত লক্ষ্য করা যায়নি।
এছাড়া দলের সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন, লন্ডন প্রবাসী মোস্তফা আব্দুল মালিক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান শফি আহমদ সলমান রয়েছেন আলোচনায়।
সাধারণ সম্পাদক পদে নেতাকর্মীরা বা কর্মিসমর্থকরা যাদের দেখতে চান কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমেরিকা প্রবাসী তোফায়েল আহমেদ, বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক ফজলু, কেন্দ্রিয় কৃষক লীগ নেতা শফিউল আলম শফি, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক কামাল হাসান, সাবেক কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম ও উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহবায়ক সিপার উদ্দিন আহমদ।
ইতোমধ্যে মৌলভীবাজার জেলায় যেসব উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছে, সবক’টি উপজেলায় সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে কেন্দ্র থেকে ঘোষিত নাম নির্ধারিত হয়ে এসেছে। ফলে কুলাউড়া উপজেলায়ও প্রার্থীরা কাউন্সিলদের চেয়ে পদ পেতে জেলা ও কেন্দ্রে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। অনেকে আর্থিক লেনদেন করে পদ লাভের জন্য চেষ্টা তদবিরও চালিয়ে যেতে শোনা গেছে।
দলের সম্মেলন প্রসঙ্গে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনু জানান, দলের সম্মেলন যাতে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় সেজন্য ইতোমধ্যে ইউনিয়ন পর্যায়ে বর্ধিত কর্মীসভা হয়েছে এবং হচ্ছে। আওয়ামী লীগ ও এর সকল অঙ্গসঙ্গঠন যাতে ঐক্যবদ্ধ থেকে সম্মেলনকে সফল করে সেজন্যে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।
নিজের প্রার্থীতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কাউন্সিলররা, সেই সাথে জেলা ও কেন্দ্র আমাকে যে দায়িত্ব দেবে, সে দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে কাজ করে যাবো। যেখানে লুটেরা, নারী ধর্ষণকারী, দখলবাজদের কোন স্থান হবে না।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:২৭ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৭ নভেম্বর ২০১৯

Sylheter Janapad |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
গোবিন্দ লাল রায় সুমন
প্রধান কার্যালয়
আখরা মার্কেট (২য় তলা) হবিগঞ্জ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার
ফোন
+88 01618 320 606
+88 01719 149 849
Email
sjanapad@gmail.com